ইসলামিক আইন স্বামী ও স্ত্রী সম্পর্ক কেমন হওয়া উচিত জেনে নিন

 ইসলামিক আইন স্বামী ও স্ত্রী সম্পর্ক কেমন হওয়া উচিত জেনে নিন 
Islamic law Learn what a husband and wife relationship should be like

what a husband and wife relationship should be like


আদরের স্ত্রী,তুমি দুনিয়ার ক্ষণস্থায়ী সুখ চাও? নাকি আখিরাত এর চিরস্থায়ী জান্নাত চাও?


হয়ত দুনায়ার সুখ দিতে পারি হালাল হারাম বিবেচনা না করে।

what a husband and wife relationship should be like

দুনায়ায় সুখ আমিও চাই আর সেটা হালাল উপায়ে পেতে চাই। কিন্তু সে পথে অনেক কষ্ট, অনেক পরীক্ষার সম্মুক্ষিন হতে হয়। তুমি কি পারবে আমার সাথে সব পরীক্ষায় অংশ নিতে? (people will stay for love, even if it hurts)
আল্লাহকে ভালবেসে, রাসূল (সা) কে ভালবেসে, আমার আর তোমার ভালবাসার খাতিরে সব ধরণের পরিস্থিতিতে আমার পাশে থাকতে পারবে?


দুনিয়াতে হয়ত দামী শপিং মলে গিয়ে দামী জিনিস কিনে দেয়ার মত টাকা নাও থাকতে পারে, হয়ত তোমার অনেক শখ পূরণ করতে নাও পারি। কিন্তু জান্নাতে তোমাকে নিয়ে অনেক দামী শপিং মলে গিয়ে অনেক দামী শপিং করার সপ্ন দেখি, যা দুনিয়ার শপিং মল গুলার ধারে কাছেও না।
আল্লাহ বেশিরভাগ মুমিণকে পরীক্ষা করার জন্য অভাব বা বিপদে ফেলে কিন্তু আমাদের সবসময় অটুট থাকতে হবে গো।




পরিপূর্ণ ঈমানদার হওয়ার চেষ্টায় থাকো ও পরিপূর্ণ পর্দার অন্তর্ভুক্ত হয়ে নিজেকে হেফাজত কর আর কিছু চাই না, বাকি টা সুন্নাহ মেনে আর তোমাকে ভালবেসে সুখি হব ইনশাআল্লাহ।

নিয়ত যদি দৃঢ় হয় আল্লাহ তোমাকে সাহায্য করবে।
পদক্ষেপ যদি আল্লাহর কথা ও তার রাসূলের দেখানো পথ মত হয় তাহলে ইনশাআল্লাহ সমাধন খুব নিকটে।
যদি দুনিয়ার সুখ থেকে আখিরাতের সুখকে প্রাধান্য দাও এর প্রতিদান নিশ্চয় আল্লাহ দিবে, ইনশাআল্লাহ।

ইতি
তোমার ........


*লজ্জাস্থান ও জিহ্বার হেফাজতকারী জান্নাতে প্রবেশ করবে। [ বোখারী, কিতাবুর রিকাক, বাব হিফজুল লিসান] ( হারাম খাওয়া থেকে নিজেকে বিরত রাখি এবং দৃষ্টি নত রাখি, নিজেকে হেফাজত করি)

*মুমিন ব্যক্তি কোন রোগ, দুশ্চিন্তা ইত্যাদিতে পতিত হলে এমনকি তার গায়ে কাঁটা ফুটলে তার নেকী। [মুসলিম- ৬৪০৩] ( বিপদে বা অভাবে বিচলিত না হয়ে ধৈর্য ধারণ করি)


*যে আল্লাহর দয়ায় ঈমানদার স্ত্রী পায়, আল্লাহ এর মাধ্যমে তার অর্ধেক ঈমান পূর্ণ করার সুযোগ দেন, আর তার খোদাভীতি তার ঈমানের বাকি অর্ধেক পুরো করে দিবে। [তাবারানী] (পাত্র /পাত্রী বাছাই করার ক্ষেত্রে দ্বীনদার এবং দ্বীনদারী কে বেশি প্রাধান্য দেই এবং ভাগ্যবান ও ভাগ্যবতী হই, এটি মুস্তাহাব)


*হে ঈমানদারগণ!তোমরা পরিপূর্ণভাবে ইসলামের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাও। [সূরা বাকারা ২০৮] (আল্লাহ তাআলার বিধি-নিষেধ মেনে পূর্ণাঙ্গভাবে ইসলামে প্রবেশ করি এবং মৃত্যু পর্যন্ত পরিপূর্ণ ঈমানদার হওয়ার প্রচেষ্টায় অব্যাহত থাকি)


আরো নতুন নতুন সিম অফার, টিপস ও নিউজ পেতে সাথেই থাকুন।

ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে সাইট শেয়ার করুন ।

Post a Comment

1 Comments