জেনে নিন ক্বলব কি ? কুরআন বৈজ্ঞানিক ভুল ও কুরানী বিশ্লেষণ

জেনে নিন ক্বলব কি ? কুরআন বৈজ্ঞানিক ভুল ও কুরানী বিশ্লেষণ



হাওড়ার টিকিয়া পড়ার নাহার সুলতানা Whatsapp এ প্রশ্ন করে বলেছেন-"কুরানী স্যার, আমি ও আমাদের পরিবার সম্পর্কে তো জানেন!! আমি ও আমার দাদা ইসলাম সম্পর্কে খুব সচেতন। আমরা কোরান এবং কোরানের বিভিন্ন আয়াত নিয়ে গবেষণা করি। আর এই গবেষণা‌য় আপনাকে সঙ্গে পেয়ে আমরা ধন্য। জানি নি কি হত, যদি আপনাকে না পেতাম!! আপনি আল্লাহর পক্ষ থেকে আমাদের জন্য রহমত ও নিয়ামত!! আর শুধু আমাদের জন্য নয়, সমগ্ৰ মুসলিম জাতির জন্য আপনি নিয়ামত!!

্যার, জানি কোরানে কোনও ভুল নেই, থাকতেই পারে না কিন্তু তারপর‌ও আপাত দৃষ্টিতে কিছু-কিছু বৈজ্ঞানিক ভুল চোখে পড়ে!! হয়ত সেই আয়াত গুলো‌র বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা ভিন্ন হবে!! যেমন ধরুন, কোরানে বলা হচ্ছে-"তারা কি কোরান সম্পর্কে চিন্তা-ভাবনা করে দেখে না?? না কি তাদের ক্বলব বা হৃতপিন্ডে তালা মারা আছে"?? তারমানে, কোরান বলছে- মানুষের হৃতপিন্ড চিন্তা-ভাবনা করে কিন্তু বিজ্ঞান বলে- মানুষের Brain চিন্তা-ভাবনা করে!! তাহলে কি কোরানে বৈজ্ঞানিক ভুল আছে?? অবশ্য প্রাচীন যুগের মানুষ‌রা ভাবত- মানুষের হৃতপিন্ড চিন্তা-ভাবনা করে!! সুতরাং কোরান তাহলে কি প্রাচীন যুগের মানুষের কথা গ্ৰহণ করেছে?? তাহলে কি কোরান মানুষের লেখা??

আমি জানি, এই প্রশ্নের সঠিক উত্তর শুধুমাত্র হোসেন কুরানী‌ই দিতে পারে। আর স্যার, আমরা কোরানের ভুল ধরছি না কিন্তু প্রশ্ন গুলো স্বাভাবিক!! আপনি ভাল করেই জানেন যে, আমরা ইসলামের প্রতি কতটা সমর্পিত!! কিন্তু প্রশ্ন গুলো মনে উঁকি দেয়, তাই প্রশ্ন‌টা করলাম!! যাইহোক স্যার, আপনার কথা-বার্তা ও লেখা পড়ে মনে হচ্ছে- Honey virus থেকে মুক্তি পেয়েছেন!! আপনার পুরাতন লেখা গুলো থেকে Honey'র ঘটনা মুছে দেওয়ার চেষ্টা করুন। এত মূল্যবান সমস্ত বিজ্ঞান পূর্ণ লেখার মধ্যে একটা ফালতু মেয়ের নাম থাকটা অশোভনীয়!! যেটা মনে হল, সেটা বললাম। কিছু মনে করবেন না। ভুল হলে ক্ষমা করবেন"।

উত্তর পরে দেব- ইনশাআল্লাহ। একটা কথা মনে পড়ছে, বলে নিই, হ্যাঁ?? আমি নিজের ভাঙা 'মন' নিয়ে 'মন' সম্পর্কে লিখতে বসেছি!! কি আজব ব্যাপার, তাই না?? যাইহোক, আপাত দৃষ্টিতে আপনার প্রশ্ন‌টি কঠিন বলে মনে হলেও, এ প্রশ্নের উত্তর কিন্তু খুব সহজ!! তাই এবার আমরা আপনার উত্তরের দিকে এগিয়ে যেতে চাই। কি বলেন?? চলুন-

আরবি قلب (ক্বলব) শব্দের প্রচলিত অর্থ হৃদয় তথা হৃতপিন্ড হলেও, قلب (ক্বলব) শব্দের অর্থ হল- যা দ্বারা চিন্তা-ভাবনা করা হয়ে থাকে। প্রাচীন যুগে মানুষ‌রা ভাবত- মানুষ হৃদয় তথা হৃতপিন্ড দিয়ে চিন্তা-ভাবনা করে, তাই তারা قلب (ক্বলব) শব্দের অর্থ করত- হৃদয় তথা হৃতপিন্ড। তাই কোরান অনুবাদে‌র ক্ষেত্রেও তাই করা হয়েছে!!
যেমন, বাংলা ভাষা‌তেও কেউ তার স্ত্রীকে গিয়ে বলতে পারে- ক‌ই গো, মনে-মনে কি ভাবছ?? সবাই এভাবেই বলে তাই না?? শিক্ষিত-মূর্খ সবাই বলে কিন্তু শিক্ষিতরা জানে যে, মন/ হৃদয়/ হৃতপিন্ড চিন্তা করতে পারে না!! এটা অবৈজ্ঞানিক কিন্তু তবুও শিক্ষিত হয়েও, এমনকি বাঙালি বিজ্ঞানীরা‌ও এভাবেই কথা বলেন। আমি ব্যাক্তি গত ভাবে বহু বিজ্ঞানী ও লেখকদের জানি, তারাও বলে থাকে- মনে মনে ভাবছি অথচ সে জানে যে, মন/ হৃদয়/ হৃতপিন্ড চিন্তা করতে পারে না!!

যাইহোক, এখন প্রশ্ন হবে- ভুল প্রচলিত আছে, সেটা থাক!! মানুষ‌রা ভুল করবে, এ‌ক‌ই ভুলটা আল্লাহ কেন করবেন?? তাহলে আল্লাহ এবং মানুষের মধ্যে পার্থক্য কি, যদি আল্লাহ‌ও প্রচলিত ভুল করেন?? এ প্রশ্নের উত্তর চান?? যদি সত্যিই এ প্রশ্নের উত্তর চান, তাহলে দেখুন- لَا يَضِلُّ رَبِّي وَلَا يَنْسَى অনুবাদ হবে এমন-"প্রভু ভুল করেন না, ভুলে যান না"(20:52, 19:64)। এবার প্রশ্ন হবে- যদি তিনি ভুল না'ই করেন, তাহলে তিনি প্রচলিত বৈজ্ঞানিক ভুলটা গ্ৰহণ করলেন কেন??

সুধী পাঠক, ভাল করে লক্ষ্য করুন, আল্লাহ প্রচলিত ভুলটাও গ্ৰহণ করেন নি। ওটা তো বাংলা ভাষার সঙ্গে আরবি ভাষার প্রচলিত নিয়ম‌টা দেখালাম। আমরা ইতি পূর্বে দেখেছি-
আরবি قلب (ক্বলব) শব্দের প্রচলিত অর্থ হৃদয় তথা হৃতপিন্ড হলেও, قلب (ক্বলব) শব্দের অর্থ হল- যা দ্বারা চিন্তা-ভাবনা করা হয়ে থাকে। প্রাচীন যুগে মানুষ‌রা ভাবত- মানুষ হৃদয় তথা হৃতপিন্ড দিয়ে চিন্তা-ভাবনা করে, তাই তারা قلب (ক্বলব) শব্দের অর্থ করত- হৃদয় তথা হৃতপিন্ড। তাই কোরান অনুবাদে‌র ক্ষেত্রেও তাই করা হয়েছে!!

কিন্তু আল্লাহ বলেন নি যে, মানুষ মন/ হৃদয়/ হৃতপিন্ড দিয়ে চিন্তা-ভাবনা করে বরং আল্লাহ বলেছেন- قلب (ক্বলব) বা যা দিয়ে চিন্তা-ভাবনা করা হয়। তাই এখন আমরা আপনার উদ্ধৃতি করা আয়াতটির সঠিক বাংলা অনুবাদ করার চেষ্টা করব- ইনশাআল্লাহ। সুতরাং দেখুন- أَفَلَا يَتَدَبَّرُونَ الْقُرْآنَ أَمْ عَلَىٰ قُلُوبٍ أَقْفَالُهَا অনুবাদ হবে এমন-"তারা কি কোরান নিয়ে গবেষণা করে নি, না কি তাদের [قلب বা ক্বলবে] চিন্তা-ভাবনা করার জায়গায় তালা মারা আছে"(47:24)?? সুধী পাঠক, এবার বলুন- আমরা কি দিয়ে চিন্তা-ভাবনা করি?? Brain দিয়ে, তাই না?? তাই অনুবাদ‌টা হবে এমন-"তারা কি কোরান নিয়ে গবেষণা করে নি, না কি তাদের [قلب বা ক্বলব অর্থাৎ] Brain এ তালা মারা আছে"(47:24)??

এখন হয়ত আপনি আপনার উদ্ধৃতি করা আয়াতের সঠিক অনুবাদ পেয়েছেন, তাই না?? এবার বলুন- এটা কি কোনও ধরণের বৈজ্ঞানিক ভুল?? এখন হয়ত কেউ বলতে পারেন- আপনি গায়ের জোরে বৈজ্ঞানিক ভুলকে সঠিক প্রমাণ করছেন!! এ প্রশ্নের উত্তরে বলব- না, এটা গায়ের জোরে অনুবাদ নয়, এটাই সঠিক অনুবাদ। আর আলহামদুলিল্লাহ, আমি দিনে 30 min gym, 30 Min yoga এবং 45 min eight pack ধরে রাখার জন্য Practice করি। তাই গায়ে জোর ভাল‌ই আছে কিন্তু গায়ের জোরে সঠিক অনুবাদ করি না!! কোরানের আরও একটা আয়াত দেখুন, যেখানে ভুল অনুবাদ করা হয়ে থাকে। সেই অনুবাদ‌টা ঠিক করে নিলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে- ইনশাআল্লাহ। তাই এবার আয়াতটি দেখুন- رَبِّ اشْرَحْ لِي صَدْرِي প্রচলিত অনুবাদ এমন-"প্রভু, আমার বক্ষ প্রশস্ত করে দিন"(20:25)। এই অনুবাদ ভুল ও অবৈজ্ঞানিক। কিভাবে?? দেখুন-
আরবি صَدْرِي (স্বাদরি) শব্দের মূল হল- صدر (স্বাদার)। যার প্রচলিত অর্থ করা হয়- বুক/ বক্ষ/ ছাতি ইত্যাদি কিন্তু আমরা সবাই জানি- صدر (স্বাদার) শব্দের অর্থ হল- মূল/ প্রধান/ কেন্দ্র ইত্যাদি। এবার লক্ষ্য করুন বাংলা ভাষার দিকে। বলা হয়ে থাকে- সদর দরজা। তারমানে কি?? তারমানে হল- প্রধান দরজা। আরও বলা হয়ে থাক যে, পশ্চিমবঙ্গের সদর শহর- কলকাতা। তারমানে কি?? তারমানে হল- পশ্চিমবঙ্গের প্রধান শহর কলকাতা। তাই না?? বাংলায় 'সদর' শব্দ‌টি আরবি صدر (স্বাদার) শব্দ হতে এসেছে। তাহলে এখন 20:25 আয়াতের সঠিক অনুবাদ হবে এমন-"প্রভু, আমার কেন্দ্র প্রশস্ত করে দিন"। এবার বলুন- আমাদের শরীরের কেন্দ্র কোনটা?? মস্তিষ্ক, তাই না?? এবার পূর্ণ সঠিক অনুবাদ হবে এমন-"প্রভু, আমার কেন্দ্র [মস্তিষ্ক] প্রশস্ত [জ্ঞান-গবেষণার বহর বড়] করে দিন"(20:25)।

সুধী পাঠক, এতক্ষণে আমরা দেখেছি- صدر (স্বাদার) শব্দের অর্থ হল- মূল/ প্রধান/ কেন্দ্র ইত্যাদি কিন্তু এখানে পেক্ষিত অনুবাদ হবে- মস্তিষ্ক বা Brain, তাই না?? এবার আরও একটা আয়াত উপস্থিত করতে চাইছি। এই আয়াতের অনুবাদ‌ও ভুল করা হয়ে থাকে।আয়াতটি দেখুন- وَلَٰكِنْ تَعْمَى الْقُلُوبُ الَّتِي فِي الصُّدُورِ প্রচলিত অনুবাদ হয় এমন-"বরং অন্ধ হয়ে থাকে [قلب বা ক্বলব বা] হৃদয়, যা বুকের মধ্যে আছে"(22:46)।
উক্ত অনুবাদ‌টি ভুল। কারণ উক্ত অনুবাদে قلب এর অনুবাদ করা হয়েছে- মন/ হৃদয়/ হৃতপিন্ড। আর صدر এর অনুবাদ করা হয়েছে- বুক/ বক্ষ/ ছাতি। সঠিক অনুবাদ কি হবে?? যা ইতিপূর্বে আমরা দেখেছি। চলুন আরও একবার দেখি- وَلَٰكِنْ تَعْمَى الْقُلُوبُ الَّتِي فِي الصُّدُورِ সঠিক অনুবাদ হবে এমন-"কিন্তু অন্ধ হয়ে থাকে তাদের [قلب বা ক্বলব] চিন্তা শক্তি‌র উৎস সমূহ, যা তাদের কেন্দ্র বা মস্তিষ্ক সমূহে অবস্থিত"(22:46)। এবার বলুন- আমি কি قلب বা ক্বলবকে 'চিন্তা শক্তি‌র উৎস' অনুবাদ করে গায়ের জোর দেখালাম, না এটাই যৌক্তিক??

সুধী পাঠক, উপরিউক্ত আয়াত থেকে একটা বিজ্ঞান সম্মত প্রশ্ন উঠবে এবং তা হল- চিন্তা শক্তির উৎস মস্তিষ্ক, না কি মস্তিষ্ক‌ই চিন্তা করে?? এ প্রশ্নের বিজ্ঞান সম্মত ব্যাখ্যা হল- আমাদের সমগ্ৰ মস্তিষ্ক চিন্তা করে না বরং মস্তিষ্কের ছোট্ট একটা অংশ‌ই চিন্তা করে। তাই উক্ত আয়াতে বলা হচ্ছে- চিন্তা শক্তি‌র উৎস মস্তিষ্কের মধ্যে অবস্থান করে!! বুঝলেন ভাই??

সুধী পাঠক, আমরা আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর দেব এবং তা হল-
خَتَمَ اللَّهُ عَلَىٰ قُلُوبِهِمْ وَعَلَىٰ سَمْعِهِمْ ۖ وَعَلَىٰ أَبْصَارِهِمْ غِشَاوَةٌ ۖ وَلَهُمْ عَذَابٌ عَظِيمٌ
প্রচলিত অনুবাদ হয়ে থাকে এমন-"আল্লাহ তাদের মনে/ হৃদয়ে/ অন্তরে/ হৃতপিন্ডে ও কানে মোহর মেরে দিয়ে ছেন এবং আর তাদের চোখের উপর রয়েছে পর্দা। তাদের জন্য রয়েছে কঠিন শাস্তি"(2:7)। এখন প্রশ্ন হবে-
মনে/ হৃদয়ে/ অন্তরে/ হৃতপিন্ডে মোহর মেরে কি হবে?? মানুষ কি মন/ হৃদয়/ অন্তর/ হৃতপিন্ড দিয়ে চিন্তা করে??

সুধী পাঠক, মনে/ হৃদয়ে/ অন্তরে/ হৃতপিন্ডে মোহর মারা সম্পর্কিত 2:7 আয়াতটি একমাত্র আয়াত নয়। এ বিষয়ে আরও অনেক আয়াত রয়েছে, সেগুলো এখানে উদ্ধৃতি না করলেও Reference no তো দিতেই পারি!! তাই না?? যেমন- 6:25, 7:100, 9:87, 9:93, 10:74, 16:108, 18:57, 30:59 আয়াত গুলো!!
সুধী পাঠক, এবার উত্তরের দিকে এগিয়ে যেতে চাই। আমরা পূর্বেই দেখেছি যে, قلب এর ভুল অনুবাদ হল-মন/ হৃদয়/ অন্তর/ হৃতপিন্ড। সঠিক অনুবাদ হবে- চিন্তা‌র উৎস বা Brain বা মস্তিষ্ক। তাই সঠিক অনুবাদ হবে এমন-"আল্লাহ তাদের চিন্তা শক্তি‌র উৎসে বা Brain এ বা মস্তিষ্কে ও কানে মোহর মেরে দিয়েছেন এবং তাদের চোখের উপরেও রয়েছে পর্দা। তাদের জন্য রয়েছে কঠিন শাস্তি'(2:7)।

এবার 2:7 আয়াত অনুযায়ী দ্বিতীয় প্রশ্ন হল- আল্লাহ নিজেই যদি আমাদের মস্তিষ্কে মোহর মেরে দেন, তবে আমরা চিন্তা-ভাবনা করব কিভাবে?? চিন্তা-ভাবনা না করলে, কিভাবে জানব যে, ইসলাম সঠিক??
পাঠক, প্রশ্ন‌টা খুব কঠিন, তাই না?? আপনার মাথায় এ প্রশ্নের কোনও উত্তর আসছে কি?? চিন্তা নেই, না এলেও দোষ দেব না আপনাকে!! আপনি তো দূরের কথা, আলেমদের কাছেও এ প্রশ্নের উত্তর নেই!! তাহলে কি এ প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে না?? কখনও উত্তর পাওয়াও যেত না, যদি হোসেন কুরানী না থাকত!! কিন্তু কিন্তু কিন্তু হোসেন কুরানী আছে- ইনশাআল্লাহ উত্তর অবশ্যই আছে। তাই চলুন-
مَنْ كَفَرَ بِاللَّهِ مِنْ بَعْدِ إِيمَانِهِ إِلَّا مَنْ أُكْرِهَ وَقَلْبُهُ مُطْمَئِنٌّ بِالْإِيمَانِ وَلَٰكِنْ مَنْ شَرَحَ بِالْكُفْرِ صَدْرًا فَعَلَيْهِمْ غَضَبٌ مِنَ اللَّهِ وَلَهُمْ عَذَابٌ عَظِيمٌ
অনুবাদ হবে এমন-"যে ব্যক্তি ঈমান আনার পর কুফরী করে, [তাকে যদি] বাধ্য করা হয় এবং তার চিন্তা-ভাবনা ঈমানের উপর নিশ্চিন্ত থাকে [তাহলে কোনও ব্যাপার নয়] কিন্তু যে ব্যক্তি মস্তিষ্ক প্রসূত ভাবে কুফরীকে গ্রহণ করে নিয়েছে, এ ধরনের সব লোকদের জন্য রয়েছে মহাশাস্তি"(16:106)। পরের আয়াতটি‌ও দেখুন-
ذَٰلِكَ بِأَنَّهُمُ اسْتَحَبُّوا الْحَيَاةَ الدُّنْيَا عَلَى الْآخِرَةِ وَأَنَّ اللَّهَ لَا يَهْدِي الْقَوْمَ الْكَافِرِينَ
অনুবাদ হবে এমন-"এটা এজন্য যে, তারা পরকালে‌র উপর পৃথিবীর জীবনকে প্রাধান্য দিয়েছে এবং আল্লাহ কাফির সম্প্রদায়কে পথ দেখান না"(16:107)। এরপর আল্লাহ মূল প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন-
أُولَٰئِكَ الَّذِينَ طَبَعَ اللَّهُ عَلَىٰ قُلُوبِهِمْ وَسَمْعِهِمْ وَأَبْصَارِهِمْ ۖ وَأُولَٰئِكَ هُمُ الْغَافِلُونَ
অনুবাদ হবে এমন-"এরাই ঐ সব লোক, যাদের চিন্তা শক্তি তথা মস্তিষ্কের উপর, কান এবং চোখের উপর আল্লাহ‌ মোহর মেরে দিয়েছেন। ঐ সব লোকেরাই গফিল"(16:108)। এখানেই শেষ না করে আরও বলেছেন- لَا جَرَمَ أَنَّهُمْ فِي الْآخِرَةِ هُمُ الْخَاسِرُونَ অনুবাদ হবে এমন-"সন্দেহ নেই যে, তারাই পরকালে ক্ষতির মধ্যে থাকবে"(16:109)।

সুধী পাঠক, তাহলে কি বুঝলেন?? এটাই বোঝা গেল
যে, শুরুতেই আল্লাহ মস্তিষ্কে মোহর মেরে দেন না। কেউ প্রথমে ইচ্ছা করে ইসলাম অস্বীকার তথা কুফরী করে এবং তারপর পরকাল উপেক্ষা করে পৃথিবীর জীবনকে প্রাধান্য দেয়, তখন-
خَتَمَ اللَّهُ عَلَىٰ قُلُوبِهِمْ وَعَلَىٰ سَمْعِهِمْ ۖ وَعَلَىٰ أَبْصَارِهِمْ غِشَاوَةٌ ۖ وَلَهُمْ عَذَابٌ عَظِيمٌ
অনুবাদ হবে এমন-"আল্লাহ তাদের চিন্তা শক্তি‌র উৎসে বা Brain এ বা মস্তিষ্কে ও কানে মোহর মেরে দিয়েছেন এবং তাদের চোখের উপরেও রয়েছে পর্দা। তাদের জন্য রয়েছে কঠিন শাস্তি'(2:7)।
সুধী পাঠক, এ বিষয়ে দ্বিতীয় উত্তর হল- মস্তিষ্কে, চোখে ও কানে মোহর মারার পর তাদের কি চিন্তা শক্তি বিলুপ্ত হয়ে যায়?? তারা কি কানা ও কালা হয়ে যায়?? উত্তর হল- না। এখন আমার প্রশ্ন হল- তাহলে মোহর মেরে লাভ কি হল?? এ প্রশ্নের উত্তর হল- এখানে 'মোহর মেরে দেওয়া হয়েছে' শব্দ প্রয়োগের মাধ্যমে তাদের‌কে ব্যাঙ্গ করা হয়েছে এবং ওটা আরবি ভাষার একটা প্রবাদ মাত্র!!

সুধীপাঠক, আপনি কি বিজ্ঞানের সাহায্যে কোরানকে জানতে ও বুঝতে চান, তাহলে নিচের Link এ Click করতে পারেন। এখানে আপনার জন্য অনেক কিছু আছে, যা আপনাকে অবাক করবে---
https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=1046074349110895&id=544853392566329

সুধী পাঠক, আমরা জানি- প্রচলিত প্রায় সব অনুবাদ সমূহে প্রচুর পরিমাণ ভুল অনুবাদ রয়েছে। তাই বাংলা অনুবাদ পড়লে বৈজ্ঞানিক ভুল চোখে পড়ে এবং ঐ ভুল অনুবাদ‌কে আমরা কোরানের ভুল বলে মনে করতে থাকি!! দুঃখের বিষয় হল- অনেকেই অবৈজ্ঞানিক ও ভুল অনুবাদ‌কে কোরানের ভুল ভেবে ইসলাম ত্যাগ করে নাস্তিক হয়ে গেছে!!
তাই অনেকেই আমাকে অনুরোধ করেছেন ও করছেন এভাবে-"হোসেন কুরানী ভাই, আপনি কোরানের 'সঠিক ও বিজ্ঞানপূর্ণ' বাংলা অনুবাদ করুন"। আমার সুপ্রিয় পাঠকদের অনুরোধ করতে চাইব- আপনারা আমার জন্য *মন* খুলে দোয়া করুন। যাতে আল্লাহ আরবি ভাষায় আমার দখল ও জ্ঞান বৃদ্ধি করে দেন এবং খুব তাড়া-তাড়ি অনুবাদে‌র কাজ শেষ করে 'সঠিক ও বিজ্ঞানপূর্ণ' কোরানের বাংলা "বিজ্ঞানের বিজ্ঞান আল কোরান" নামক ইতিহাস সৃষ্টিকারি অনুবাদ আপনাদের হাতে তুলে দিতে পারি!!

সুধী পাঠক, প্রশ্ন হতে পারে- নতুন করে কোরানের আরও একটা অনুবাদে‌র প্রয়োজন আছে?? আজকের লেখাই আপনার জন্য উত্তর!! তবুও কয়েকটা আয়াত দেখুন, এখানেই আছে উত্তর!! যা আপনার অবশ্যই দেখা উচিৎ-
يُؤْتِي الْحِكْمَةَ مَنْ يَشَاءُ ۚ وَمَنْ يُؤْتَ الْحِكْمَةَ فَقَدْ أُوتِيَ خَيْرًا كَثِيرًا ۗ وَمَا يَذَّكَّرُ إِلَّا أُولُو الْأَلْبَابِ
অনুবাদ হবে এমন-"যাকে ইচ্ছা, তাকে বিজ্ঞানের জ্ঞান দান করেন। যাকে দেওয়া হয়েছে বিজ্ঞানের জ্ঞান, তাকে দেওয়া হয়েছে বিরাট কল্যাণ। শিক্ষা নেয় না বোধসম্পন্ন‌রা ছাড়া"(2:269)। দেখুন আল্লাহ আরও কি বলেছেন-
ادْعُ إِلَىٰ سَبِيلِ رَبِّكَ بِالْحِكْمَةِ وَالْمَوْعِظَةِ الْحَسَنَةِ ۖ وَجَادِلْهُمْ بِالَّتِي هِيَ أَحْسَنُنَ
অনুবাদ হবে এমন-"মানুষ‌কে প্রভুর পথে‌র দিকে ডাকুন বিজ্ঞানসম্মত ভাবে, সুন্দর উপদেশ এবং সুন্দর যুক্তির মাধ্যমে"(16:125)। 'সঠিক ও বিজ্ঞানপূর্ণ' অনুবাদে‌র প্রয়োজন কি নেই?? "বিজ্ঞানের বিজ্ঞান আল কোরান" এর প্রয়োজন কি নেই??

আশা করছি, বোঝাতে পারলাম এবং আরও কঠিন কঠিন প্রশ্ন থাকলে, পাঠান- ইনশাআল্লাহ, চেষ্টা করব সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার।


আরো নতুন নতুন সিম অফার, টিপস ও নিউজ পেতে সাথেই থাকুন।

ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে সাইট শেয়ার করুন ।

Post a Comment

0 Comments