জেনে নিন বাদামের পুষ্টি গত উপাদান সমূহ কী কী

জেনে নিন বাদামের পুষ্টি গত উপাদান সমূহ কী কী

জেনে নিন বাদামের পুষ্টি গত উপাদান সমূহ কী কী

বাংলাদেশের বহুল জনপ্রিয় একটি ফল হচ্ছে বাদাম। অধিকাংশ মানুষ এই এ ফলটি পছন্দ করে থাকে। বাচ্চা থেকে বয়স্ক মানুষ পর্যন্ত এটি অনায়াসে খেতে পারে। বাদাম হচ্ছে একটি স্বাস্থ্যসম্মত খাবার। শরীরের জন্য এর উপকারিতা অপরিসীম। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, ভিটামিন এবং প্রোটিন। যা আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত উপকারী এবং রোগ নিরাময়ে সহযোগিতা করে। 



আমাদের দেশে সাধারণত কয়েক রকমের বাদাম পাওয়া যায়। যেমন পেস্তা বাদাম, চিনাবাদাম, আখরোট, কাঠবাদাম ,কাজুবাদাম ইত্যাদি। এসব সকল বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি উপাদান। তবে বাদাম গুলো লবন ছাড়া খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। এতে করে আরও সুস্থ ও ফিট থাকা যায়।

খাবারের তালিকায় যে কারণে বাদাম রাখার প্রয়োজন

1. শরীরের হার্টের উন্নতির জন্য বাদাম এর গুরুত্ব অতুলনীয়। কেননা বাদামে রয়েছে ওমেগা 3, যা শরীরের হাটকে ভালো রাখে এবং হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি থেকে রক্ষা করে।

2. তাছাড়া বাদামে রয়েছে ভিটামিন, ক্যালসিয়াম এবং আয়রন। যার শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং  দৈহিক গঠনকে সুন্দর করে তুলে।

3. তাছাড়া বাদামে উপাদানগুলো মানসিক চাপ কমাতে সহযোগিতা করে এবং চিন্তাশক্তির গুলোকে বৃদ্ধি করে তুলে।

4. এর ভিটামিন শরীরের ত্বকে মসৃণ এবং বয়স্ক ছাপ হতে রক্ষা করে। দুটি চোখের নিচের কালো দাগ গুলো দূর করতে সাহায্য করে।

5. এ ফল খাওয়ার ফলে কোষ্ঠকাঠিন্য ও শ্বাসকষ্ট দূর হয়। তাছাড়া লিভার ও কিডনি ভালো থাকে।

6. বাদামে থাকা বিদ্যমান ফাইবার শরীরের রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা কমাতে সহযোগিতা করে।যার ফলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ রাখা সম্ভব হয়।

7. এ ফল খেলে কোলন ক্যান্সারের আশঙ্কা একদম কমে যায়।

7. উচ্চ কলেস্টেরল সমস্যা হতে মুক্তি পাওয়ার জন্য বাদাম এর কার্যকারিতা গুরুত্বপূর্ণ। নিয়মিত বাদাম খেলে এর পরিমাণ অনেকটা কমে যায়।

তবে বাদাম ভালো বলেই এটিও অতিমাত্রায় খাওয়া যাবে না। পরিমিত মাত্রায় খেতে হবে। বেশি মাত্রায় বাদাম খেলে পেটে এসিডিটি, এলার্জি এবং গেস জনিত সমস্যা হতে পারে।

আমাদের দেশে বিভিন্ন ধরনের বাদাম রয়েছে। বাদামের প্রকারভেদ বেঁধে এর উপাদান কিছুটা ভিন্ন হয়ে থাকে। তবে আমাদের দেশে চিনাবাদামের সংখ্যা অত্যন্ত বেশি। বেশিরভাগ দোকানে এ বাদাম পাওয়া যায়। চীনা বাদামে রয়েছে প্রচুর পরিমানে কার্বোহাইডেট।

বর্তমান সময়ে দুটি গবেষণায় দেখা গেছে যে,  যারা নিয়ম অনুযায়ী প্রতিদিন বাদাম খায় তাদের একটু বেশি। আর তাদের হার্টের বিভিন্ন সমস্যা থেকে মুক্তি পেয়ে থাকে। বাদামের মধ্যে যে সাতটি পূর্ণ রয়েছে তা মানুষের শরীরকে সদানন্দ রাখে।

ব্রাজিলে এক ধরনের বিশেষ বাদাম রয়েছে , যার নাম হচ্ছে সেলেনিয়াম। এটি প্রস্টেট ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে বিশেষ সাহায্য করে। অস্ট্রেলিয়ান জাতীয় বাদামে পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালরি থাকে।

সবশেষে বলা যায় যে বাদামের পুষ্টিগুণ অনেক সহায়ক ও উপকারী। বাদামে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন, খাদ্যআঁশ, শর্করা জাতীয় উপাদান থাকে। তাছাড়া বাদাম সাধারণত স্তন ক্যান্সার, ক্যান্সার ও হার্টের রোগ প্রতিরোধে ব্যাপক সহযোগিতা করে । এছাড়া শরীরের ত্বক চুল এর উজ্জ্বলতা ও মসৃণ রাখার জন্য বাদাম খাওয়া জরুরি।

যতটা সম্ভব বিভিন্ন প্রকারের বাদামগুলো প্রতিদিন নিয়ম মাফিক অনুসারে খাওয়া দরকার। এতে করে নিজে সুস্থ সবল থাকতে পারবেন। 


Post a Comment

0 Comments