জেনে নিন চুলে মেহেদি লাগানোর উপকারিতা

জেনে নিন চুলে মেহেদি লাগানোর উপকারিতা

চুল মানুষের সৌন্দর্য বর্ধন করে । আর চুল যদিও আর যত্নে রাখা হয় তাহলে আমাদের সৌন্দর্যটা পরিপূর্ণ ভাবে ফুটে উঠবে না। আর তাই আমরা কমবেশি চুলের যত্ন নিয়ে থাকি। চুলে মেহেদি লাগালে অনেক উপকার পাওয়া যায়। চুলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ উপাদান গুলো এই মেহেদিতে পাওয়া যায়। মেহেদি গাছের পাতাগুলো সংরক্ষণ করে তুলে দেওয়া যায়। তবে বাজারে এখন মেহেদি গুড়োর প্রক্রিয়া জাতকরণ পাওয়া যায়। যাতে আরও নানা উপাদান মিশিয়ে তৈরি করা হয়েছে। 



চুলে মেহেদি দেওয়ার উপকারিতা গুলো হচ্ছে


1. চুল রাঙাতে

কোন ক্ষতি ছাড়াই চুল রাঙাতে চান তাহলে অবশ্যই মেহেদীর বিকল্প হিসাবে কোন কিছু পাবেন না। কারন এটাতে নেই কোন প্রকার ক্ষতিকারক এসিড। কেমিক্যাল ভিত্তিক হেয়ার কালার গুলো চুলকে নিস্তেজ করে দেয়।ক্ষতির হাত থেকে বাঁচার জন্য 2 টেবিল চামচ শুকনো আমলকি, 1 চা চামচ ব্ল্যাক টি এবং দুটি লবঙ্গ মিশাতে হবে। তারপর পানিতে সিদ্ধ করে নিতে হবে। সিদ্ধ পানিতে মেহেদী পেস্ট মিশিয়ে কমপক্ষে 2 ঘন্টা চুলে লাগালে চুল রাঙা হয়ে যাবে।

2. মাথার তালু চুলকানি দূর করতে
এ সমস্যা থেকে সমাধান পাওয়ার জন্য আমলা পাউডার এর সাথে মেহেদির হেয়ার প্যাক মিশিয়ে তৈরি করতে হবে। তাহলে এটি মাথার তালু চুলকানি ও এলার্জি দ্রুত দূর করে ফেলবে।

3. চুল বৃদ্ধি করতে

মেয়ে দিতে বেশ কিছু ভেষজ গুণ রয়েছে। যা চুলের বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। তাই চুল বৃদ্ধিতে মেহেদি লাগানো এর কার্যকর ও তার কোনো জুড়ি নেই।

4. কন্ডিশনার হিসেবে

কন্ডিশনার হিসেবে মেহেদির ব্যবহারের কোনো তুলনা নেই। মেহেদী চুলের ওপর এমন একটি স্তর তৈরি করে যার কারণে চুল ভেঙে যায় না। স্তরটি চুলের আর্দ্রতা কে ধরে রাখে যার ফলে চুল ভেঙে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা পায়। তাছাড়াও চুল শক্তিশালী এবং অনেক উজ্জলতা লাভ করে। যদি কন্ডিশন হিসেবে মেহেদী ব্যবহার করতে চান তাহলে অবশ্যই শ্যাম্পু করার পর ব্যবহার করুন।

5. চুলের উজ্জ্বলতা বাড়ানো

প্রথমে মেহেদির সঙ্গে তেল ও ডিম মেশাতে হবে। তারপর তা চুলে লাগাতে হবে। এরকমভাবে আধঘন্টা রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেললে চুল হবে দারুন ঝলমলে ও দারুন উজ্জল।

6. শ্যাম্পু হিসেবে ব্যবহার

যদি মেহেদি শ্যাম্পু হিসেবে ব্যবহার করতে চান তাহলে আলাদা করে শ্যাম্পু ব্যবহার করার প্রয়োজন নেই। কেননা মেহেদি প্রাকৃতিকভাবে চুল পরিষ্কার করে ফেলে।

7. চুলের গোড়া মজবুত করতে

মেহেদির অন্যতম গুণ হচ্ছে চুলের গোড়া শক্ত করে চুল পড়া কমানো। তবে এজন্য ঘন ঘন মেহেদি লাগানো যাবে না। কারণ ঘনঘন মেহেদি লাগালে চুল রুক্ষ হয়ে যেতে পারে। উল্টো চুল পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

মেহেদি লাগানোর জন্য এক্সট্রা টিপসগুলো হচ্ছে

  • *মেহেদির পেস্ট ঘন করার জন্য চিনি ব্যবহার করতে পারেন।

  • *যেদিন মেহেদী ব্যবহার করবেন তার আগেরদিন চুল পরিষ্কার করে নেওয়া ভালো।

  • *গারো রং করার জন্য ফ্রেশ মেহেদী ব্যবহার করা উত্তম।

  • *মেহেদির সাথে অন্যান্য অতিরিক্ত উপাদান প্রয়োজন ছাড়া যোগ না করাই ভালো।

  • *মেহেদী লাগানোর পর হেয়ার ক্যাপ ব্যবহার করুন যাতে কাপড়ের সাথে মেহেদি না লেগে যায়।


আমাদের নতুন সাইটের ভালো একটা পোস্ট দেখে নিনঃ  Easy ways to burning fat faster 2021


আরো নতুন নতুন টিপস পেতে সাথেই থাকুন। 

Post a Comment

Previous Post Next Post