আসসালামু আলাইকুম। আশা করি সবাই ভালো আছেন। আমিও ভালো আছি।

আজকে আমি কিভাবে সাস্থ্য ভালো রাখা যায় তার উপায় এবং কয়েকটি বিউটি টিপস নিয়ে এসেছি। এটা হলো ২য় পর্ব।পর্ব ১ দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন।  আশা করি সবাই উপকৃত হবেন।



১.শুকনো খেজুর মানব শরীরে অতিরিক্ত ফ্যাট কমাতে সহায়তা করে। যারা অতিরিক্ত মোটা তাদের জন্য এটি উপকারী।



2. গরমকালে সান ট্যান রিমুভ করতে টমেটোর সর খুব উপকারী। 

গরমকালে সান ট্যান হওয়া একটি কমোন সমস্যা।এটি থেকে খুব সহজেই প্রাকৃতিক ভাবে প্রতিকার পাওয়া যায়।তা হলো টমেটোর সর।এগুলো খুবই উপকারী।



৩.কমলালেবুতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন সি থাকে। যা ত্বকের জন্য খুব উপকারী। 



৪.চালকুমড়ার জ্যুস থাইরয়েড সমস্যার জন্য খুব উপকারী। 



৫.পোশাক থেকে চা কফির দাগ দুর করতে পেয়ারা থেতো করে মাখিয়ে কিছুক্ষণ পর সাবান পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। চা কফির দাগ ভ্যানিস হয়ে যাবে। 

৬.নিমপাতা বাটার সাথে মুলতানি মাটি ও মধু মিশিয়ে মুখে লাগান। মুখের সমস্ত দাগ উঠে যাবে। 



৭.ময়দার সাথে চালের গুঁড়া ও দুধ মিশিয়ে স্ক্রাব করুন।এই মিশ্রণ খুব ভালো স্ক্রাবিং এর কাজ করে। 



৮.তেজপাতায় লিনালুল নামে এক ধরনের উপাদান থাকে, যা অ্যারোমা থেরাপিতে ঘ্রানের সাহায্যে নেওয়া হয়।এই উপাদানে মানুষের উগ্র আচার কমে।ফলে তেজপাতা স্বাস্থ্যর  জন্য খুব উপকারী। 



৯ গরমকালে রোদ থেকে ফেরার পর টক দইয়ের সাথে চালের গুঁড়া মিশিয়ে মুখে লাগান ও হাতে পায়ে ম্যাসাজ  করুন।এই মিশ্রণ খুব ভালো স্ক্রাবিং এর কাজ করে। 

১০.পাকা কলার সাথে ময়দা ও লেবুর রস মিশিয়ে মিশ্রণ টা হাটুতে লাগান।এতে হাটুর কালো ভাব দুর হয়ে যাবে। 

১১.মুসুরি ডাল বাটার সাথে মধু মিশিয়ে স্ক্রাব করুন। ১০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে করে ত্বকের মরা কোষ দুর হয়ে যাবে। আর ত্বকের আদ্রতা বজায় থাকবে।

১২.চন্দন গুড়োর সাথে গোলাপ জল মিশিয়ে ব্রনতে লাগালে ব্রন কমে যাবে। দাগ ও দুর হয়ে যাবে। 



১৩.পেয়াজের রসের সাথে মুলতানি মাটি মিশিয়ে মুখে লাগান। এতে করে মুখের কালো দাগ দুর হবে।

১৪.ছ্যাচি পেয়াজ চুলের জন্য খুব উপকারী। এই পেয়াজের রস মাথার স্ক্যাল্পে  ম্যাসাজ করলে চুল পড়া সমাধান দুর হয়ে যাবে। 



১৫.মুখের যেকোনো দাগে নারকেল জল লাগালে মিলিয়ে যাবে।


তো আজকে এই পর্যন্তই।সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন।আল্লাহ হাফেজ।


Post a Comment

Previous Post Next Post